পাইথন পরিচিতি

লিখেছেন: কাজী মুশফিকুর রহমান || সফটওয়্যার প্রকৌশলী, টেকনিয়াস (সফটওয়্যার নির্মাণ প্রতিষ্ঠান) || তারিখঃ 16 Jan, 2022


পাইথন বিশ্বব্যাপী ব্যবহৃত একটি প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ যা ডাটা সাইন্স এবং আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স এর জন্য খুবই বিখ্যাত। বিভিন্ন সংগঠনগুলো ডাটা কালেক্ট করতে এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো রিসার্চ এর কাজে এটি ব্যবহার করে থাকে। দিন দিন এর জনপ্রিয়তা বেড়েই চলছে । বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ হচ্ছে পাইথন। গুগল, ফেইসবুকসহ পৃথিবীর অনেক নামি দামি সফটওয়্যার কোম্পানিগুলো প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ হিসাবে এটি ব্যবহার করে থাকে। উন্নত দেশগুলোতে শিশু কিশোরদের কে ফার্স্ট প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ হিসাবে পাইথন শিখানো হয়, কারণ এটি ইউজার ফ্রেন্ডলি এবং সহজ।

 

পাইথন এর ফিচারসমুহ

  • পাইথন শেখা খুব সহজ।
  • এটি একটি ফ্রি এবং ওপেনসোর্স প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ, যার ব্যবহার সকলের জন্য উন্মুক্ত। এটি বিভিন্ন ধরণের ওপেন সোর্স প্যাকেজ ও লাইব্রেরিসহ একটি এনভায়রনমেন্ট সরবরাহ করে থাকে।
  • পাইথন এর রয়েছে অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড ফিচার, তাই এটাকে আমরা অবজেক্ট ওরিয়েন্টেড প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ (OOP) বলতে পারি। এটি বিভিন্ন প্রোগ্রামিং এপ্রোচ কে সাপোর্ট করে, তার মধ্যে একটি এপ্রোচ হচ্ছে, আমরা অবজেক্ট ক্রিয়েট (তৈরী) করার মাধ্যমে একটি প্রোগ্রামিং প্রবলেম কে সলভ করতে পারি।
  • এটি গ্রাফিক্যাল ইউজার ইন্টারফেস (GUI = Graphical User Interface) সাপোর্ট করে। পাইথন এর GUI লাইব্রেরি হচ্ছে Tkinter, যা GUI এপ্লিকেশন বিল্ড করতে সাহায্য করে। এ সুবিধা পেতে আপনাকে Tkinter মডিউলটি ইম্পোর্ট করে নিতে হবে।
  • পাইথন একটি হাই লেভেল ইন্টারপ্রেটেড প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ। এটি ইন্টারপ্রেটর ব্যবহার করে কোড এর এক লাইন এক লাইন করে ইন্টারপ্রেট (ট্রান্সলেট) করে। অন্যদিকে কম্পাইলার সম্পূর্ণ কোড কে একবারে কম্পাইল করে এবং সম্ভব্য সকল এররগুলো কে প্রদর্শন করে।
  • এটি একটি পোর্টেবল ল্যাংগুয়েজে। ধরে নিন, আপনার কাছে উইন্ডোজ পাইথন কোড লিখা আছে, এখন আপনি যদি এই কোড কে অন্য কোন অপারেটিং সিস্টেম এ রান করতে চান, তাহলে কোড এর পরিবর্তন করার প্রয়োজন নেই।
  • পাইথন একটি ইন্টেগ্রেটেড ল্যাঙ্গুয়েজ। কারণ, এটা কে অন্যান্য প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ (যেমন: C, C++, Java ইত্যাদি) এর সাথে কম্বাইন করা যায় এবং যেহেতু এর কোড কম্পাইল করার দরকার হয়না, তাই এক্ষেত্রে ডিবাগিং প্রসেস  সহজ।

 

পাইথন কেন  শিখব ?

পাইথন একটি সহজ প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ। এর সিনট্যাক্স এবং স্ট্রাকচার খুবই সহজ হওয়ায় প্রাইমারি প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ হিসাবে এটি খুবই উপযোগী। অন্যান্য প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ (যেমন: C, C++, Java ইত্যাদি) এর চেয়ে তুলনামূলক সহজে এবং অল্প সময়ে এটি শেখা যায়। এটি একটি বিগিনার ল্যাঙ্গুয়েজ, যার রয়েছে সহজে এক্সেসযোগ্য বিভিন্ন স্ট্যান্ডার্ড এবং এক্সটার্নাল লাইব্রেরি। পাইথন খুবই দ্রুত সময়ে কংক্রিট  এপ্লিকেশন তৈরী করতে সাহায্য করে। এটি একটি ইন্টারেক্টিভ ল্যাঙ্গুয়েজ, যা ইউজার কে নির্ভুলভাবে প্রজেক্ট তৈরী করতে গাইড করে এবং এটি সফটওয়্যার প্রকৌশলীদের কাছে খুবই প্রিয় একটি ল্যাংগুয়েজ।

 

পাইথন এর সুবিধাসমূহ

  • ইংলিশ ল্যাঙ্গুয়েজ এর সিনটেক্স এর সাথে পাইথন এর সিনট্যাক্স এর মিল থাকার কারণে শিক্ষার্থীদের জন্য এটি সহজে বোধগম্য।
  • এটা কালেক্ট করা সহজ।
  • অন্যান্য প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ (যেমন: C, C++, Java ইত্যাদি) এর তুলনায় এর কোড সংক্ষিপ্ত।
  • ডিবাগিং প্রসেস তুলনামূলক সহজ। যদিও কোড এক্সিকিউট করার সময় একসাথে অনেক এরর রেইজ হয়, কিন্তু পাইথন মাত্র একটি এরর প্রদর্শন করে।
  • ডাইনামিক টাইপ। কোড রান করার পূর্বে পাইথন,  ভ্যারিয়েবল এর ডাটা টাইপ সম্পর্কে জানতে পারে না। কোড এক্সেকিউট হওয়ার সময় ভ্যারিয়েবল এর ডাটা টাইপ অটোমেটিক্যালি এসাইন হয়ে যায়। সুতরা ভ্যারিয়েবল এবং তাদের ডাটা টাইপ ডিফাইন করার প্রয়োজন হয় না।
  • একই কোড বিভিন্ন অপারেটিং সিস্টেম (যেমন: উইন্ডোজ, লিনাক্স ইত্যাদি) এ এক্সিকিউট করা যায়।
  • এটার রয়েছে সুবিশাল লাইব্রেরি।
  • এটি প্রাকটিক্যাল ও অর্গানাইজড প্রোগ্রামিং স্ট্রাটেজি  (যেমন: OOP)  সাপোর্ট করে।
  • ব্যাপকভাবে এপ্লিকেশন তৈরী করতে এটাকে স্ক্রিপ্টিং ল্যাঙ্গুয়েজ হিসাবে ব্যবহার করা যায় অথবা বাইট কোড এ কনভার্ট করা যায়।
  • এটাকে C, C++, এবং Java এর সাথে সমন্বয় করা যায়।
  • এটি হাই প্রোডাক্টিভিটি এর একটি ল্যাংগুয়েজ।